মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

বেগম রোকেয়া দিবস

আজ ৯ ডিসেম্বর ২০১৩ । আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস ২০১৩ উপলক্ষে দিরাইয়ে সফল ৫ নারীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। স্ব স্ব ক্ষেত্রে অবদান রাখায় ‘জয়ীতা’ হিসেবে উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছবি চৌধুরীসহ ৫ নারীকে এ সংবর্ধনা দেয় উপজেলা প্রশাসন। সোমবার দুপুরে উপজেলা গণমিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুস। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলতাফ হোসেনেরসভাপতিত্বে সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছবি চৌধুরী ও শিক্ষিকা মঞ্জুরী তালুকদার। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা অসীম সরকারের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে রাখেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাপ মিয়া, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা আশুতোষ দাস, দিরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক রাজিয়া বেগম, কেয়ার এএসডির প্রতিনিধি সৈয়দা ইয়াছমিন ও ব্র্যাকের উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয়কারী আব্দুর রাজ্জাক। সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে ছবি চৌধুরী বলেন, নারীদের ক্ষমতায়ন শুধু আইনে, সভা-সমাবেশে, বাস্তবে আজও নারীরা সর্বক্ষেত্রে অবহেলিত-বঞ্চিত, এ ধরণের মন মানসিকতা দিয়ে নারীর ক্ষমতায়ন হবেনা। প্রধান অতিথির বক্তব্যে আব্দুল কুদ্দুস বলেন, এমন এক সময় ছিল, যখন কন্যা শিশু জন্ম নিলে গলা টিপে হত্যা করা হতো, বেগম রোকেয়ার জন্ম না হলে এ থেকে আমরা পরিত্রাণ পেতাম না। নারী-পুরুষের সম্মিলিত প্রচেষ্টাই এ দেশকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
 
সভার সমাপনী বক্তব্যে ইউএনও মোহাম্মদ আলতাফ হোসেন বলেন, নানা প্রতিকুলতা সত্ত্বেও যারা জীবন যুদ্ধে জয়ী হয়েছে, তারাই তো জয়ীতা, নারীদের ক্ষমতায়নের জন্যই এসব জয়ীতাদের খুঁজছে বাংলাদেশ। সরকার নারীদের উপর সহিংসতা ও নির্যাতন রোধকল্পে সর্বশেষ যে আইনটি প্রবর্তন করেছে তা হলো মোবাইল কোর্ট আইন ২০০৯। খুবে বেশিদিন আগে নয় এই বছর খানেক আগে পত্রিকার পাতা উল্টালেই দেখা যেত নারীদের উপর সহিংসতার খবর। এ যেন নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছিল। সরকার তখনই মোবাইল কোর্ট আইনের তফশিলে বাংলাদেশ দন্ডবিধির ৫০৯ ধারা অন্তর্ভুক্ত করে ইভ টিজিং প্রতিরোধ করেছে। এছাড়াও নারীদের অধিকার আদায়ের লক্ষে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, যৌতুক নিরোধ আইন, ১৯৮০. সংবর্ধিত অন্যরা হলেন অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অবদানের জন্য লাভলী রাণী সরকার, সফল জননী হিসেবে ঊষা রাণী দাস ও নির্যাতনের বিভিষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করার জন্য বেগম জ্যোৎস্না আক্তার।

ছবি


সংযুক্তি